আগামী সংসদ নির্বাচনে প্রধানমন্ত্রী হিসেবে আপনি কাকে দেখতে চান?

152
ভোটের আগে ‘ভোট’!

একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে সম্ভাব্য প্রার্থীদের বিষয়ে অনলাইন জরিপের উদ্যাগ গ্রহণ করে ‘ভয়েস অব জার্নালিস্ট’ নামে একটি ওয়েবসাইট। আগামী সংসদ নির্বাচনে প্রধানমন্ত্রী, আসন ভিত্তিক সংসদ সদস্য ও সিটি নির্বাচনে মেয়র প্রার্থীদের নাম দিয়ে অনলাইনে ভোট আহ্বান করে ওয়েব সাইটটি। তবে সাইট পরিচালনাকারীদের নাম, ঠিকানা ও পরিচয় না থাকায় এ নিয়ে সন্দেহ দেখা দেয় ক্ষমতাসীনদের মধ্যে।

আওয়ামী লীগের উচ্চ মহলের দেয়া অভিযোগের ভিত্তিতে বাংলাদেশ টেলিযোগাযোগ নিয়ন্ত্রণ কমিশন (বিটিআরসি) ওই ওয়েবসাইটের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিতে যাচ্ছে।

election1

সাইটটি ঘেঁটে দেখা যায়, বর্তমান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা, বিএনপিপ্রধান বেগম খালেদা জিয়া ও জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান হুসেইন মুহম্মদ এরশাদের ছবি দিয়ে জানতে চাওয়া হয়েছে, ‘আগামী সংসদ নির্বাচনে প্রধানমন্ত্রী হিসেবে আপনি কাকে দেখতে চান?’

ওয়েব সাইটের ফেসবুক পেজে খুব অল্পসংখ্যক লোককে তাদের জরিপের বিষয়ে সাড়া দিতে দেখা গেছে।

সাইটটিতে ‘আসন্ন গাজীপুর ও খুলনা সিটি কর্পোরেশন মেয়র হিসেবে কাকে দেখতে চান’ বলেও ভোট চাওয়া হয়েছে। পাশাপাশি সারা দেশের ৩০০টি আসনে সম্ভাব্য প্রার্থীদের নাম দিয়েও ভোট চাওয়া হয়েছে।

election1

অনলাইনের ওই ভোটিং সাইটে প্রতিটি সংসদীয় আসনের জরিপ সংক্রান্ত পোস্টে বলা আছে, ‘আসছে একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন। চলছে ভোটের হাওয়া। চলছে মনোনয়ন লড়াই। একই আসনে একাধিক প্রার্থী দলীয় মনোনয়ন ও ভোটারদের সমর্থন পেতে মাঠ দাপিয়ে বেড়াচ্ছেন। দিচ্ছেন নানা প্রতিশ্রুতি। কোন আসনে কে কতটা এগিয়ে? জনগণ কাকে আগামীতে সংসদ সদস্য (এমপি) হিসেবে দেখতে চায়? ভোটের আগেই ভোট নিয়ে প্রার্থীদের জনপ্রিয়তা যাচাই করছে ভয়েস অব জার্নালিস্ট। আপনিও আপনার মূল্যবান ভোট দিয়ে যোগ্য ও পছন্দের প্রার্থী বেছে নিন।’

election1

এ পোস্ট নিয়ে তোলপাড় শুরু হয় সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে। সংসদ সদস্যদের সমর্থকদের অনলাইনের ওই ভোটিং সাইটে ভোট দেয়ার পাশাপাশি প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থীর বিষয়েও বিভিন্ন মন্তব্য করতে দেখা গেছে।

election1

অনলাইনে ভোটিং ওই প্রক্রিয়াটি প্রতারক চক্রের কাজ বলে মনে করছেন ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগ। অন্যদিকে, নির্বাচনের তফসিল ঘোষণার আগে এ বিষয়ে কিছুই করার নেই বলে জানিয়েছে নির্বাচন কমিশন (ইসি)।

এ বিষয়ে ব্যবস্থা নিতে বাংলাদেশ টেলিযোগাযোগ নিয়ন্ত্রণ কমিশন (বিটিআরসি) ও নির্বাচন কমিশনের (ইসি) কাছে আহ্বান জানান আওয়ামী লীগের নির্বাচন পরিচালনা কমিটির কো-চেয়ারম্যান এইচ টি ইমাম।

election1

বিষয়টি নিয়ে আওয়ামী লীগের উপ-দফতর সম্পাদক বিপ্লব বড়ুয়া বলেন, ‘একটি প্রতারক চক্র এমন জরিপ চালাচ্ছে, যার কোনো ভিত্তি নেই। ওই জরিপের ফলে সরকারদলীয় সংসদ সদস্যরা ছাড়াও সম্ভাব্য মনোনয়নপ্রত্যাশীদের মধ্যে বিরূপ প্রতিক্রিয়া তৈরি হচ্ছে। প্রচলিত আইন অনুযায়ী অনলাইন ওই জরিপ সংস্থার বিরুদ্ধে সাইবার অ্যাক্টের আওতায় ব্যবস্থা নেয়ার অনুরোধ করা হয়েছে। ইতোমধ্যে নির্বাচন কমিশনকেও বিষয়টি জানানো হয়েছে।’

এ বিষয়ে জানতে চাইলে নির্বাচন কমিশনার কবিতা খানম বলেন, ‘কোনো ওয়েব সাইট বন্ধ করা ইসির কাজ নয়। তাছাড়া নির্বাচনী তফসিল ঘোষণা না হওয়ায় জরিপকারীদের বিরুদ্ধে কোনো ব্যবস্থা নেয়ারও সুযোগ নেই। তবে অবৈধভাবে নির্বাচন কমিশনের লোগো ব্যবহার করলে তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হবে।’

election1

অনলাইন ওই জরিপ সংস্থার বিরুদ্ধে অভিযোগ পাওয়ার বিষয়টি স্বীকার করে বিটিআরসির চেয়ারম্যান ড. শাহজাহান মাহমুদ বলেন, ‘শিগগিরই তাদের বিরুদ্ধে আমরা ব্যবস্থা গ্রহণ করব।’