গ্রীন লাইনের সাথে সংঘর্ষে মেঘনায় ডুবে গেছে বালিভর্তি বাল্কহেড, জাহাজের তলানিতে ফাটল

61

ঢাকা থেকে বরিশালগামী দিবাকালীন একমাত্র নৌ সার্ভিসের যাত্রীবাহী জাহাজ এমভি গ্রীন লাইন-৩ এর সাথে বালুবাহী একটি বলগেটের মুখোমুখি সংঘর্ষ হয়েছে। শুক্রবার বেলা সাড়ে ১১টায় চাঁদপুরের মোহনপুর সংলগ্ন মেঘনা নদীতে মুখোমুখি সংঘর্ষের ফলে বালুবাহী বলগেটটি ডুবে যায় এবং ৩ শতাধিক যাত্রীবাহী গ্রীন লাইন-৩ এর বামপাশের তলানি ফেটে যায়। এ কারণে গ্রীন লাইন-৩ এর যাত্রা বাতিল করে দুপুর ২টার দিকে ওই কোম্পানির আরেকটি জাহাজে যাত্রীদের বরিশালের উদ্দেশ্যে পাঠানো হয়। একই সঙ্গে যাত্রীদের জান-মালের স্বার্থে শুক্রবার বিকেল ৩টায় বরিশাল থেকে ঢাকা রুটে গ্রীন লাইনের যাত্রী সার্ভিস বন্ধ রাখা হয়েছে।

এর মাত্র ৮ দিন আগে গত ১০ মে একই কোম্পানির এমভি গ্রীন লাইন-২ নামে আরেকটি জাহাজ ঢাকা থেকে বরিশাল আসার পথে বুড়িগঙ্গা নদীতে বিপরীতমুখী একটি লঞ্চের সাথে মুখেমুখি সংঘর্ষ হয়। এতে গ্রীন লাইন-২ এর ব্যাপক ক্ষতি হয়।

গ্রীন লাইন কর্তৃপক্ষ জানায়, শুক্রবার সকাল ৮টার দিকে ৩ শতাধিক যাত্রী নিয়ে ঢাকার লালকুটির ঘাট থেকে এমভি গ্রীন লাইন-৩ বরিশালের উদ্দেশ্যে যাত্রা করে। মুশলধারে বৃষ্টি এবং বাতাসের মধ্যে সকাল সাড়ে ১১টার দিকে গ্রীন লাইন-৩ চাঁদপুরের মোহনপুর সংলগ্ন মেঘনা নদী অতিক্রমকালে বিপরীতমুখী বালুবাহী একটি বলগেটের সাথে মুখোমুখি সংঘর্ষ হয়।

দুর্ঘটনাকবলিত গ্রীন লাইন-৩ এর যাত্রীরা জানান, মুখোমুখি সংঘর্ষের পরপরই বালুবাহী বলগেটটি ডুবে যায়। অপরদিকে গ্রীন লাইন-৩ এর বামপাশের সামনের দিকের তলানি ফেটে যায়। এ অবস্থায় গ্রীন লাইন নদীর তীরে নিয়ে নোঙ্গর করে রাখা হয়।

গ্রীন লাইন সার্ভিসের বরিশাল অফিসের ইনচার্জ শামসুল আরেফিন লিপটন বলেন, মুশলধারে বৃষ্টির মধ্যে গ্রীন লাইন-৩ মেঘনা নদী হয়ে বরিশালের দিকে আসছিলো। বৃষ্টির কারণে চাঁদপুর সংলগ্ন মেঘনা নদীতে বিপরীতমুখী একটি বলগেট দেখা যাচ্ছিলো না। এমনকি রাডারেও ধরা পড়ছিলো না। এক পর্যায়ে দুটি জাহাজের মুখোমুখি সংঘর্ষে গ্রীন লাইন-৩ এর সামনের বামপাশের অংশ ক্ষতিগ্রস্ত হয়। যাত্রীদের নিয়ে নদীতেই নোঙ্গর করে রাখা হয় গ্রীন লাইন-৩। এ অবস্থায় ঢাকার লালকুটির ঘাটে নোঙ্গর করে থাকা একই কোম্পানির এমভি গ্রীন লাইন-২ এসে দুপুর ২টার দিকে দুর্ঘটনাকবলিত এমভি গ্রীন লাইন-৩ এর যাত্রীদের তুলে নিয়ে বরিশালের উদ্দেশ্যে রওনা দেয়।

গ্রীন লাইন সার্ভিসের বরিশাল অফিসের ইনচার্জ শামসুল আরেফিন লিপটন আরও বলেন, দুর্ঘটনাকবলিত জাহাজের যাত্রীদের নিয়ে গ্রীন লাইন-২ বরিশাল নদী বন্দরে পৌঁছাবে সন্ধ্যায়। সন্ধ্যা ৬টায় বরিশাল থেকে যাত্রী নিয়ে ছেড়ে গেলে গ্রীন লাইন ঢাকায় পৌঁছাতে রাত গভীর হয়ে যাবে। তখন যাত্রীরা গন্তব্যে যেতে সমস্যায় পড়তে পারেন। এ কারণে যাত্রীদের জান-মালের স্বার্থে শুক্রবার বিকেল ৩টায় বরিশাল থেকে ঢাকা রুটে গ্রীন লাইনের যাত্রী সার্ভিস বন্ধ রাখা হয়েছে।

দুর্ঘটনায় জাহাজটির কিছুটা ক্ষতি হলেও কোনো যাত্রী হতাহত হয়নি বলে জানিয়েছেন গ্রীন লাইন সার্ভিসের বরিশাল অফিসের ইনচার্জ শামসুল আরেফিন লিপটন।

এর ৮ দিন আগে গত ১০ মে ঢাকার বুড়িগঙ্গা নদীতে বরিশালগামী এমভি গ্রীন লাইন-২ এর সাথে বিপরীতমুখী এমভি সাব্বির লঞ্চের মুখোমুখি সংঘর্ষ হয়। এতে গ্রীন লাইনের সামনের বামপাশের একটি অংশ বিধ্বস্ত হয়। ক্ষতিগ্রস্ত গ্রীন লাইন-২ মেরামত করে শুক্রবার আবারও রুটে যাত্রী পরিবহনে সংযুক্ত করা হয়েছে বলে জানিয়েছে কর্তৃপক্ষ।

 

বিডি-প্রতিদিন