গোপালগঞ্জে সন্ত্রাসী দেবরের ভয়ে বাড়ি ছাড়া ভাবী শিখা রানী বিশ্বাস

57

গোপালগঞ্জ প্রতিনিধি :

গোপালগঞ্জের কোটালীপাড়া উপজেলায় চকপুকুরিয়া গ্রামের সন্ত্রাসী দেবর জুরান পান্ডের ছেলে সুষেন পান্ডের ভয়ে বাড়ি ছাড়া বড় ভাই শুষেণ পান্ডের স্ত্রী শিখা রানী বিশ্বাস। দুটি ছেলে মেয়ে নিয়ে বর্তমানে অসহায় ও মানবতার জীবন কাটছে তার।

শিখা রানী বিশ্বাস জানান, ৫ বছর আগে দুটি সন্তান রেখে আমার স্বামী মারা যায়। চাকুরী কারনে আমাদের বাহিরে থাকতে হয়। আমার দেবর সুষেন পান্ডে বাড়ির দেখাশুনা করতো। তখন সে বাড়ির সমস্ত কিছু দখল করে নেয়। আমার স্বামী বেঁচে থাকতে আমাদের বাড়ি জমি নিয়ে আমার স্বামীকে পারপিটও করেছে সুষেন পান্ডে। তখন এলাকার গন্যমাণ্য ব্যাক্তিরা এটি মিটিয়ে দেয় এবং জমি সমান ভাবে ভাগ করে দেয়। আমার স্বামী মারা যাবার পরে আমাদের আর ওই বাড়িতে উঠতে দেয় আমার দেবর সুষেন পান্ডে। এখন আমি সন্তানদের নিয়ে আমার বাবার বাড়িতে মানবতার জীবনযাপন করছি। আমরা বাড়ি যেতে পাড়ছি না ভয়ে। বাড়িতে যেতে চাইলে আমাদের মেরে ওই জমিতে পুতে রাখা হবে বলে হুমকি দিচ্ছে আমার দেবর সুষেন পান্ডে। এর আগে বিভিন্ন অপকর্ম করেছে সে।

তিনি আরও বলেন, সে নিয়মিত ভাবে অসামাজিক কাজে লিপ্ত ছিল। এর আগে ডাকাতি, চুরি, ছিনতাই, চাদাবাজী, ধর্ষণসহ বিভিন্ন অসামাজিক কাজ করেছে। এখন আমার স্বামীর বাড়ি ও জমি দখল করে রেখে আমাকে বিভিন্ন ভাবে হত্যার হুমকি দিয়ে যাচ্ছে। তাই আমি প্রান ভয়ে বাড়ি ফিরতে পারছি না।

এ ব্যাপারে সুষেন পান্ডে বলেন, আমি আমার ভাইয়ের কোন জমি দখল করি নাই। একটি পুকুর আমি বাৎসরিক লিজ নিয়েছি। এই আষাঢ় মাসে শেষ হয়ে যাবে। তারপর এটি আমি ছেড়ে দিবো। আমার বিরুদ্ধে যে অভিযোগ করা হয়েছে সেটা মিথ্যা ও বানোয়াট।