১ জুন থেকে ট্রেনের অগ্রিম টিকিট বিক্রি শুরু

89

ঈদুল ফিতর উপলক্ষে এবার ট্রেনের অগ্রিম টিকিট বিক্রি শুরু হবে আগামী ১ জুন (শুক্রবার)। ওইদিন ১০ জুনের ট্রেন যাত্রার টিকেট বিক্রি হবে। এই টিকিট বিক্রি চলবে ৬ জুন (বুধবার) পর্যন্ত। আর ফিরতি টিকিট বিক্রি শুরু হবে ১০ জুন (রবিবার) থেকে। যা চলবে ১৫ জুন (শুক্রবার) পর্যন্ত।

বৃহস্পতিবার রেলভবনে এক  সংবাদ সম্মেলনে এসব তথ্য জানান রেলমন্ত্রী মুজিবুল হক। তিনি বলেন, ১৬ জুন ঈদের সম্ভাব্য দিন ধরে ১ জুন থেকে টিকিট বিক্রির সূচি ঠিক করা হয়েছে।

বাংলাদেশ রেলওয়ে এর আগে ২ জুন থেকে অগ্রিম টিকিট বিক্রির পরিকল্পনার কথা জানালেও চূড়ান্ত সিদ্ধান্তে তা একদিন এগিয়ে আনা হয়েছে বলেও জানান রেলমন্ত্রী।

১ জুন থেকে ৬ জুন পর্যন্ত ঈদযাত্রায় রেলওয়ের অগ্রিম টিকিট বিক্রি করা হবে জানিয়ে মুজিবুল হক বলেন, ঈদের পরের ফিরতি যাত্রার টিকেট বিক্রি হবে ১০ থেকে ১৫ জুন পর্যন্ত।

রেলমন্ত্রী বলেন, এবার ঈদে মোট সাত জোড়া বিশেষ ট্রেন থাকছে। ঈদের পাঁচদিন আগে এবং সাতদিন পরে বিশেষ ট্রেন চলাচল করবে। রেলে এই ১২ দিন কোনো বন্ধ থাকবে না। এই দিনগুলোতে সারাদেশের সব রুটেই ট্রেন চলাচল করবে।

তিনি জানান, ঢাকার কমলাপুর রেলওয়ে স্টেশন থেকে যে ৩১টি আন্তঃনগর ট্রেন চলাচল করবে, সেসবের টিকিটসংখ্যা হবে ২২ হাজার। রেলপথের একজন যাত্রী সর্বোচ্চ চারটি টিকিট কিনতে পারবেন।

এছাড়া ঢাকার কমলাপুরের পাশাপাশি বিমানবন্দর, চট্টগ্রাম সিলেট, খুলনা, যশোর ঈশ্বরদী, রাজশাহী, দিনাজপুর, লালমনিরহাটসহ বড় স্টেশনগুলো থেকেও অগ্রিম টিকেট বিক্রি করা হবে বলে জানিয়েছেন মুজিবুল হক।

৩০ রোজা পূর্ণ হলে আগামী ১৭ জুন বাংলাদেশে পবিত্র ঈদুল ফিতর উদযাপন হওয়ার কথা। সে হিসেবে ঈদে বাড়ি গমনেচ্ছু যাত্রীদের ১ জুন দেওয়া হবে ১০ জুনের (রবিবার) টিকিট। ২ জুন দেওয়া হবে ১১ জুনের (সোমবার), ৩ জুন দেওয়া হবে ১২ জুনের (মঙ্গলবার), ৪ জুন দেওয়া হবে ১৩ জুনের (বুধবার), ৫ জুন দেওয়া হবে ১৪ জুনের (বৃহস্পতিবার) এবং ৬ জুন দেওয়া হবে ১৫ জুনের (শুক্রবার) টিকিট।

আর ঈদ উদযাপন শেষে কর্মস্থলে গমনেচ্ছু যাত্রীদের ১০ জুন দেওয়া হবে ১৯ জুনের, ১১ জুনে দেওয়া হবে ২০ জুনের, ১২ জুনে ২১ জুনের, ১৩ জুনে ২২ জুনের, ১৪ জুনে ২৩ জুনের এবং ১৫ জুনে দেওয়া হবে ২৪ জুনের ফিরতি টিকিট।