বঙ্গবন্ধুকে নিয়ে চলচ্চিত্র নির্মাণ করা এখন সময়ের দাবি-মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ মন্ত্রী নারায়ন চন্দ্র চন্দ এম.পি

93
সার্ক চলচ্চিত্র সাংবাদিক ফোরাম এর উদ্যোগে গত ২ জুন শনিবার বিকাল ৪.৩০টায় কাকরাইলস্থ হোটেল রাজমনি ঈশা খা ব্যাংকুয়েট হলে ‘বঙ্গবন্ধু, মুক্তিযুদ্ধ ও বাংলাদেশের চলচ্চিত্র’ শীর্ষক আলোচনা ও ইফতার মাহফিল অনুষ্ঠিত হয় ।
সার্ক চলচ্চিত্র সাংবাদিক ফোরামের সভাপতি ও দৈনিক নবচেতনার নির্বাহী সম্পাদক ও রাজনীতিক বিশ্লেষক রেদুয়ান খন্দকার এর সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন মাননীয় মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ মন্ত্রী নারায়ন চন্দ্র চন্দ এম.পি।
স্বাগত বক্তব্য রাখেন সার্ক চলচ্চিত্র সাংবাদিক ফোরামের সহ-সভাপতি বরেণ্য সাংবাদিক ও কলামিস্ট লায়ন সালাম মাহমুদ।
বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন সাবেক বাণিজ্য ও বেসামরিক বিমান চলাচল ও পর্যটন মন্ত্রী জাতীয় পার্টির কো- চেয়ারম্যান জি.এম কাদের, বাংলাদেশ প্রেস কাউন্সিলের চেয়ারম্যান মাননীয় বিচারপতি মোহাম্মদ মমতাজ উদ্দিন আহমেদ, মাননীয় সাবেক সংসদ সদস্য প্রকৌশলী তানভীর শাকিল জয়, বীরমুক্তিযোদ্ধা, বরেণ্য চলচ্চিত্র ব্যক্তিত্ব আহসান উল্লাহ মনি, সোহরাওয়ার্দী হাসপাতালের পরিচালক অধ্যাপক ডা. উত্তম কুমার বড়–য়া, বাংলাদেশ আওয়ামী সাংস্কৃতিক ফোরাম (আসাফো)’র চেয়ারম্যান বরেণ্য সাংস্কৃতিক ব্যক্তিত্ব সাইদুর রহমান সজল, ডিআইজি প্রিজন্স মো. বজলুর রশীদ, বরেণ্য সাংবাদিক মোল্লা জালাল, দৈনিক নবচেতনার সম্পাদক লায়ন মো. সাখাওয়াত হোসেন, ঢাকা সাংবাদিক ইউনিয়নের সভাপতি আবু জাফর সূর্য, জাজ মাল্টিমিডিয়ার সিইও মোহাম্মদ আলিমুল্লাহ, বঙ্গবন্ধু সাংস্কৃতিক জোট ঢাকা মহানগর সভাপতি জাফর আহমেদ জয়।
প্রধান অতিথির বক্তব্যে মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ মন্ত্রী নারায়ন চন্দ্র চন্দ এম.পি বলেন, বঙ্গবন্ধু জাতির পিতা। বঙ্গবন্ধুর জন্ম না হলে বাংলাদেশের জন্ম হতো না। বঙ্গবন্ধুকে নিয়ে চলচ্চিত্র নির্মাণ করা উচিত। সত্যিকারের মুক্তিযুদ্ধ নির্ভর চলচ্চিত্র নির্মাণ এখন সময়ের দাবি। সার্ক চলচ্চিত্র সাংবাদিক ফোরাম দীর্ঘদিন ধরে বঙ্গববন্ধু, মুক্তিযুদ্ধ, বাংলাদেশের চলচ্চিত্র ও সাংবাদিকতার উন্নয়নে কাজ করছে। আমি তাদের অগ্রযাত্রাকে সাধুবাদ জানাই। তারা তাদের কার্যক্রম আগামীদিনেও অব্যাহত রাখবে এই প্রত্যাশা।