লুঝনিকিতে শুরু মহারণ, জমকালো সমাপ্তি অনুষ্ঠান

61

উত্তেজনায় থরথর করে কাঁপছে ফুটবলবিশ্ব। ৩১ দিনের জমজমাট নাটক শেষ। ৬২ ম্যাচের লাগাতার স্নায়ুর চাপ সামলে বাজিমাতের টেনশনেও দাঁড়ি। কারা থাকলেন, কারা বিদায় নিলেন, অবসান সেই তর্কেরও। এই শুরু হয়েছে ফাইনাল । লুঝনিকি স্টেডিয়ামে কাপ-যুদ্ধের ফাইনালে মুখোমুখি ফ্রান্স ও ক্রোয়েশিয়া। এই ম্যাচের সঙ্গে জড়িয়ে থাকছে আবেগ আর ইতিহাস। থাকছে প্রতিশোধের একটা দিকও। মহাতারকারা কেউ নেই। এই ম্যাচ আসলে ধারাবাহিক থাকা দুই দলের।

ম্যাচ শুরুর আগে দর্শকদের মনোরঞ্জনের জন্য রাখা হয়েছিল সমাপনী অনুষ্ঠান। যেমনটা রাখা হয়েছিল উদ্বোধনী অনুষ্ঠান ।

২১তম বিশ্বকাপ ফাইনাল শুরুর তিরিশ মিনিট আগে রাত সাড়ে ৮টায় লুঝনিকি স্টেডিয়ামের গ্যালারি মেতে উঠে উইল স্মিথের ‘লিভ ইট আপ’-এ। রাশিয়া বিশ্বকাপের থিম সং গাইবেন মার্কিন অভিনেতা ও গায়ক উইল স্মিথ ছিলেন কসোভোর পপ গায়িকা ইরা ইস্ত্রেফি এবং কলম্বিয়ান রেগেটন স্টার নিকি জ্যাম। মাঠ মাতালেন স্মিথ-ইরা-নিকি। তারপরেই থাকবে সিউলের গানের দল কে-পপ ব্যান্ড এক্সো-র পারফর্ম্যান্স।

ত্রিশ মিনিটের এই জমজমাট অনুষ্ঠান শেষে শিরোপা যুদ্ধে মাঠে নামেছে ফ্রান্স-ক্রোয়েশিয়া ।

উইল স্মিথ বিশ্বকাপের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানেও ছিলেন। এবার সমাপনী অনুষ্ঠানের মূল আকর্ষণ তিনি। উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে মূল আকর্ষণ ছিলেন ইংল্যান্ডের গ্লোবাল মিউজিক আইকন রবি উইলিয়ামস। অবশ্য তিনি বিতর্কিতও হন। উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে পারফরর্ম করার এক পর্যায়ে ক্যামেরার দিকে তিনি মধ্যমা আঙুল প্রদর্শন করেন।

১৪ জুন ৩২টি দলকে নিয়ে আটটি গ্রুপে বিভক্ত করে মাঠে গড়ায় বিশ্বকাপ। দেখতে দেখতে শেষের পথে একবিংশ আসর। আজকের এ ম্যাচের মধ্য দিয়েই পর্দা নামবে বিশ্বকাপের। আবার শুরু হবে ক্ষণগণনা পরবর্তী বিশ্বকাপের জন্য। আজকের ম্যাচে ফ্রান্স জিতলে এটা হবে তাদের দ্বিতীয় শিরোপা। আর ক্রোয়েশিয়া জিতলে হবে ইতিহাস। প্রথমবার ফাইনালে এসে শিরোপা জিতে তাই ইতিহাস গড়ার সুযোগ মদ্রিচ-মানজুকিচদের সামনে।