এমন ঢাকা দেখেছে কবে ?

31

গত রবিবার রাজধানীর বিমানবন্দর সড়কে বাসচাপায় শহীদ রমিজ উদ্দিন ক্যান্টনমেন্ট কলেজের দুই শিক্ষার্থীকে হত্যার ঘটনায় বৃহস্পতিবারও রাজধানীতে স্কুল-কলেজের শিক্ষার্থীরা ছিল প্রতিবাদে সোচ্চার।

তাদের অংশগ্রহণ ছিল আগের চার দিনের চেয়ে অনেক বেশি। সকালে উত্তরা, ফার্মগেট, রামপুরা, সায়েন্স ল্যাব, বনানী, যাত্রাবাড়ীর শনির আখড়ায় রাস্তায় শান্তিপূর্ণভাবে অবস্থান করে শিক্ষার্থীরা। এ সময় তারা নিরাপদ সড়ক ব্যবস্থা প্রতিষ্ঠা ও ঘাতক চালকদের বিচারের দাবিতে স্লোগান দেয়।

তারা চালকদের লাইসেন্স পরীক্ষাও শুরু করে। কাগজপত্র ঠিক ছিল না এমন চালকদের ব্যক্তিগত গাড়ি ও মোটরসাইকেলও তারা আটকে দেয়। গতকাল রাজধানীর কয়েকস্থানে রিকশা ও গাড়ি শৃঙ্খলভাবে চলাচল করতে বাধ্য করে। একই দৃশ্য আজ বৃহস্পতিবারও ব্যাপকভাবে চোখে পড়ে।

রাজধানীর অনেক স্থানেই ট্যাক্সি, কার রিকশাকে সারিবদ্ধভাবে চলাচল করতে দেখা যায়। এমন অজস্র ছবি সোশ্যাল মিডিয়ায় ছড়িয়ে পড়েছে। এমন কর্মকাণ্ডে আন্দোলনরত শিক্ষার্থীরা স্বাভাবিকভাবেই বাহবা কুড়োচ্ছেন।

আজ পুলিশ কর্মকর্তাদের গাড়ি, এমনকি একজন মন্ত্রীর গাড়িকেও এক অর্থে ছাড় নিতে হয়েছে ছাত্রদের কাছ থেকে। মন্ত্রীও হাসিমুখে মেনে নিয়েছেন শিক্ষার্থীদের অনুরোধ। দিনভর রোদবৃষ্টিতে ভিজে আন্দোলন করে যাচ্ছেন শিক্ষার্থীরা।