ফ্লোরিডার উইকেট মনে ধরেছে তামিমের

176

ওয়ানডে সিরিজে বাংলাদেশ দলের সেরা ব্যাটসম্যান ছিলেন তামিম ইকবাল। জিতেছিলেন সিরিজ সেরার পুরষ্কারও। তবে সেন্ট কিটসে টি-টোয়েন্টি সিরিজের প্রথম ম্যাচে দেখাতে পারেননি সেই ধারাবাহিকতা। ফিরে গিয়েছিলেন ইনিংসের প্রথম বলেই।

নিজের ভুলের প্রায়শ্চিত্ত করে লডারহিলে সিরিজের দ্বিতীয় ম্যাচেই স্বরূপে ফিরেছেন দেশসেরা ওপেনার। খেলেছেন ৭৪ রানের ঝকঝকে ইনিংস। জিতিয়েছেন দলকে, জিতেছেন ম্যাচসেরার পুরষ্কার। ম্যাচ শেষে তাই স্বাভাবিকভাবেই উচ্ছ্বসিত তামিম। জানিয়েছেন লডার হিলের উইকেটের প্রতি নিজের ভালো লাগার কথা।

ফ্লোরিডায় এর আগে সাকিব আল হাসান ব্যতীত আর কারোই খেলার সুযোগ হয়নি। এই মাঠের উইকেটে প্রথমবারের মতো ব্যাট করতে নেমেই প্রেমে পড়ে গিয়েছেন তামিম। ম্যাচ শেষে পুরষ্কার বিতরণী অনুষ্ঠানে তামিম নিজেই জানিয়েছেন এই কথা।

তিনি বলেন, ‘সেন্ট কিটসে আমি যে শটে আউট হয়েছিলাম, ভেবেছিলাম যে ব্যাটে-বলে হয়ে যাবে। কিন্তু হয়নি। তাই আজ আমি শুরুতে নিজেকে খানিক সময় দিয়েছি ও পরে উইকেটের চরিত্র বুঝে মারতে পেরেছি। ফ্লোরিডায় এবারই প্রথম খেললাম আমি। প্রথমবারেই এই উইকেটের প্রেমে পড়ে গিয়েছি।’

ওয়ানডে সিরিজের তিন ম্যাচেই সাকিব আল হাসানের সাথে পঞ্চাশোর্ধ্ব রানের জুটি গড়েছিলেন তামিম ইকবাল। প্রথম টি-টোয়েন্টিতে তা হয়নি। দ্বিতীয় ম্যাচেই আবার ম্যাচের ভাগ্য নির্ধারণী জুটি গড়েছেন এই দুজন। চতুর্থ উইকেট জুটিতে সাকিবকে সাথে নিয়ে তামিম যোগ করেছেন ৫০ বলে ৯০ রান।

তামিমের ব্যাট থেকে আসে ৭৪ রান, সাকিব খেলেন ৬০ রানের ইনিংস। বন্ধু সাকিবের ইনিংস অপরপ্রান্তে তামিমকে নির্ভার করেছেই বলে জানান বাঁহাতি এই ড্যাশিং ওপেনার।

সাকিবের ব্যাটিংয়ের প্রশংসায় তামিম বলেন, ‘সাকিব অবিশ্বাস্য এক ইনিংস খেলেছে। আমার উপর থেকে অনেকখানি চাপ সরিয়ে দিয়েছে সে। ব্যাট হাতে নামার পর থেকেই তাকে মনে হচ্ছিল ফর্মে আছে। শুরুর দিকে সাকিবের বাউন্ডারিগুলো আমাদের অনেক এগিয়ে দেয়। যা ধরে আমরা বড় সংগ্রহের দিকে যাই।’